কম্পিউটার বিজ্ঞানের ইতিহাস (১)

a-abacus1

কম্পিউটার বিজ্ঞানের ইতিহাস শুরু হয়েছিল বিংশ শতাব্দীর কম্পিউটার বিজ্ঞানের আধুনিক শৃঙ্খলা আবির্ভাবের অনেক আগে এবং এর আগে শত শত বছর ধরে এ ইঙ্গিত ছিল। কম্পিউটারের ধারণা এবং মেশিনের যান্ত্রিক উদ্ভাবন এবং আধুনিক প্রতি গাণিতিক তত্ত্বের এই অগ্রগতি একটি প্রধান একাডেমিক ক্ষেত্র এবং একটি বৃহদায়তন বিশ্বব্যাপী শিল্প ভিত্তির দিকে পরিচালিত করেছিল।

২৭০০-২৩০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ সময়ের মধ্যে সুমের-এ আবিষ্কৃত ‘Abacus’ ছিল গুনতি ব্যবহারের জন্য নিকটতম পরিচিত টুল। সুমেরীয়দের ‘Abacus’ গঠিত হয়েছিল ধারাবাহিক কলামের একটি টেবিলে যা তাদের ষষ্ঠিক সংখ্যা মাত্রার ধারাবাহিক আদেশ সিস্টেম মেনে চলত। এটি ব্যবহারের মূল শৈলী ছিল নুড়ি দিয়ে বালিতে টানা লাইন। আরো একটি আধুনিক নকশা ‘Abaci’ আজও হিসাব হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

‘Antikythera’ প্রক্রিয়াকে নিকটতম পরিচিত যান্ত্রিক এনালগ কম্পিউটার হিসেবে বিশ্বাস করা হয়। এটা জ্যোতির্বিদ্যার বিভিন্ন শাখায় অবস্থান নিরূপণ করার জন্য পরিকল্পনা করা হয়েছিল। এটা ১৯০১ সালে ‘Kythera’ এবং ক্রীটের মধ্যকার ‘Antikythera’-এর গ্রিক দ্বীপ ‘Antikythera’-তে আবিষ্কৃত হয়। চতুর্দশ শতাব্দিতে ইউরোপে যান্ত্রিক জ্যোতির্বিদ্যার ঘড়ি দেখা না যাওয়া পর্যন্ত অনুরূপ জটিল প্রযুক্তিগত হস্তনির্মাণ আর পুনরাবির্ভূত হয়নি।

যখন জন নেপিয়ের সপ্তদশ শতকের গোড়ার দিকে গণনীয় উদ্দেশ্যে লগারিদম আবিষ্কার করেন, সেখানে গণক সরঞ্জাম তৈরির উদ্ভাবক এবং বিজ্ঞানীদের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জনের একটি নির্দিষ্ট সময়কে অনুসরণ করা হয়। ১৬২৩ সালে উইলহেম ‘Schickard’ একটি হিসাবী মেশিন ডিজাইন করেন, কিন্তু তিনি প্রোটোটাইপ বিল্ডিং শুরু করার পর ১৬২৪ সালে একটি অগ্নিকাণ্ড দ্বারা যখন তার প্রকল্প ধ্বংস হয়, তখন তিনি তা পরিত্যক্ত করেন। ১৬৪০ সালের দিকে একটি নেতৃস্থানীয় ফরাসি গণিতবিদ ‘Blaise Pascal’ আলেকজান্দ্রিয়ার গ্রিক গণিতবিদ হিরো দ্বারা বর্ণিত একটি নকশার উপর ভিত্তি করে একটি যান্ত্রিক যোগ ডিভাইস নির্মাণ করেন। তারপর ১৬৭২ সালে গটফ্রিড উইলহেম লিবনিজ সোপানযুক্ত গণনাকারী আবিষ্কার করেন যা তিনি ১৬৯৪ সালে সম্পন্ন করেন।

১৮৩৭ সালে চার্লস ‘Babbage’ প্রথম তার বিশ্লেষণাত্মক ইঞ্জিন বর্ণনা করেন যা একটি আধুনিক কম্পিউটারের জন্য প্রথম নকশা হিসাবে গ্রহণ করা হয়। বিশ্লেষণাত্মক ইঞ্জিনে ছিল বিস্তারযোগ্য মেমরি, একটি গাণিতিক ইউনিট এবং যুক্তি প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা যা ‘loops’ এবং শর্তাধীন শাখাবিন্যাসের সঙ্গে একটি প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যাখ্যা করতে সক্ষম ছিল। নির্মিত না হলেও, নকশা ব্যাপকভাবে গবেষণা করা হয়েছে। বিশ্লেষণাত্মক ইঞ্জিনের ১ কিলোবাইট মেমরি এবং ১০ ‘Hertz’ ঘড়ির গতি ছিল।

প্রথম আধুনিক কম্পিউটার পরিকল্পিত হওয়ার আগে গণিত ও ইলেকট্রনিক্স তত্ত্বে যথেষ্ট অগ্রগতি প্রয়োজন ছিল।

বাইনারি লজিক


১৭০৩ সালে, গটফ্রিড উইলহেম লিবনিজ তার লেখা বাইনারি সংখ্যা সিস্টেমের একটি প্রথাগত গাণিতিক অর্থে যুক্তির উন্নতি করেন। তাঁর সিস্টেমে এক এবং শূন্য সত্য এবং মিথ্যার মানের প্রতিনিধিত্ব করে। কিন্তু ১৮৫৪ সালে প্রকাশিত জর্জ ‘Boole’-এর গাণিতিকভাবে স্থাপিত গণনীয় প্রসেসের একটি সম্পূর্ণ সিস্টেমের সাথে তার বুলিয়ান বীজগণিত প্রকাশ করতে এক শতাব্দীরও বেশি সময় লেগেছিলো।

এই সময়ে বাইনারি প্যাটার্ন দ্বারা চালিত প্রথম একটি যান্ত্রিক ডিভাইস উদ্ভাবিত হয়েছিল। শিল্প বিপ্লব অনেক কাজের যান্ত্রিকীকরণে এগিয়ে নিয়ে এসেছিল। ১৮০১ সালে ‘Joseph Marie Jacquard’-এর তাঁত পাঞ্চ কার্ড নিয়ন্ত্রণ করেছিলো, যেখানে একটি গর্ত একটি বাইনারি এক এবং একটি স্পট কার্ড একটি বাইনারি শূন্য নির্দেশ করে। ‘Jacquard’ এর তাঁত একটি কম্পিউটার থেকে অনেক দূরে ছিল, কিন্তু এটা বাইনারি সিস্টেম দ্বারা চালিত মেশিনকে প্রতারিত করতে পারতো।

102649737-03-01

কম্পিউটার এর জন্ম


১৯২০ সালের আগে কম্পিউটার মানুষের কেরানি ছিল যা কম্পিউটেশন সঞ্চালন করত। তারা সাধারণত একটি পদার্থবিদের নেতৃত্বে ছিল। কম্পিউটারকে অনেক হাজার হাজার কমার্স, সরকার এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ করা হতো। এই কম্পিউটারের মধ্যে বেশীর ভাগই মহিলা ছিলো। কিছু কিছু ক্যালেন্ডারের জন্য জ্যোতির্বিদ্যা গণনার কাজ করতো, অন্য ব্যালিস্টিক টেবিলগুলো সামরিক কাজের জন্য ব্যবহৃত হতো।

(চলবে…)

Comments

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া জানান

2 মন্তব্য on "কম্পিউটার বিজ্ঞানের ইতিহাস (১)"

জানান আমাকে যখন আসবে -
avatar
সাজান:   সবচেয়ে নতুন | সবচেয়ে পুরাতন | সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত
KOUSIK DAS
অতিথি

Bhasha kichuta sorol hole valo hoto. Sorbosadharon er bujhte osubidha hobe, ar amra cs students ra esob emni i jani.

Biggan jatrar onno lekha gulo jithesto sorol o biggan ke manusher majhe tule dhorar moto. Kintu eta ektu jotil laglo. Lekhok kheyal rakhben please.

wpDiscuz