আপনার এক গ্লাস পুষ্টিকর দুধের পিছনের কথা

Stop-Shattering-the-Glass

কখনও কি ভেবে দেখেছেন আপনি যেভাবে দুধ খেতে পারেন, অন্যান্য প্রাণীরা বিশেষ করে স্তন্যপায়ী প্রাণীরা খেতে পারে কিনাঃ বিশেষ করে প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায়? বিড়ালের দুধ চুরি করে খাওয়ার কথা আমরা সবাই জানি। কিন্তু গরু, ছাগল, কুকুর, বা অন্যান্য স্তন্যপায়ীর ক্ষেত্রে কি তা দেখেছেন?  প্রায় সব স্তন্যপায়ীই যে প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় দুধ খেতে পারে না সেটা লক্ষ্য করেছেন?

milk

মানুষের সাম্প্রতিক বিবর্তন : দুধ হজম করার ক্ষমতা

স্তন্যপায়ী প্রাণীরা শিশুকালে দুধ পান করেই বড় হয়। কিন্তু মানুষ ছাড়া অন্য কোনও প্রাণীই বড় হয়ে দুধ হজম করতে পারে না। এটি মানবজাতির ইতিহাসে দ্রুততম বিবর্তনের উদাহরণ যা কঠোর প্রাকৃতিক নির্বাচন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়েছে।

১৯৬০ সালের আগেও এ ব্যপারে গুরুত্ব দেয়া হয়নি। এখন জানা যাচ্ছে ১০,০০০ বছর আগেও মানুষ দুধ হজম করতে পারতো না। কিন্তু গত দশ হাজার বছরেই দুনিয়ার পাঁচটি স্থানে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে মানুষের দুধ হজম করার ক্ষমতা বিবর্তনের মাধ্যমে অর্জিত হয়েছে। ইউরোপ, ভারতীয় উপমহাদেশ, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও চীনের বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর মানুষের মধ্যে আলাদা মিউটেশনে পৃথিবীর ৩২% মানুষ আজ দুধ হজম করতে পারে। এই ক্ষমতার নাম Lactose Persistence ও যেসব মানুষ দুধ হজম করতে পারে না সেই সমস্যার নাম Lactose Intolerance.

সংক্ষেপে, মানুষ স্তন্যপায়ী প্রাণী বলে শিশুকালে মায়ের দুধ খেয়ে বড় হয়। তবে বড় হলে দুধ খাওয়া সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করে মানবদেহে নির্দিষ্ট কিছু মিউটেশনের উপর। যার দেহে এই মিউটেশন নেই সে দুধ খেতেই পারে না।

milk-machine

হার্ডকোর সায়েন্স

দুধে অবস্থিত ল্যাকটোজ নামের চিনি হজমের জন্য ল্যাকটেজ এনজাইমের প্রয়োজন যা অধিকাংশ স্তন্যপায়ী প্রাণীতে একটু বয়স হলেই আর দেখা যায় না। কোন মানুষেরদুধ হজম করার ক্ষমতা না থাকলে ক্ষুদ্রান্ত্রে দুধ জমে ফ্যাটি এসিড থেকে গ্যাসে রূপান্তরিত হয় ও তার পেটে ব্যথা, ডাইরিয়া প্রভৃতি উপসর্গ দেখা যাবে।

দেখা গেছে ইউরোপিয়ানদের মধ্যে 13910T জিন এককভাবে দায়ী। সমগ্র ভারতবর্ষে 13910T জিন ও ভারতের অধিকাংশ উত্তরের জনগোষ্ঠীর মধ্যে ভিন্ন একটি জিন LCT 22018A দায়ী। এই LCT 22018A জিনের ঘনত্ব আবার চীনাদের ভেতর বেশী যার কাজ একই, আগের 13910 T জিনের ন্যায় কিন্তু সম্পূর্ণ ভিন্ন মিউটেশন। অর্থাৎ ভারতবাসীর শরীরে দুই ধরণের জিনের অস্তিত্বই বর্তমান যা ব্যাখ্যা করে প্রাচীনকাল থেকেই দুগ্ধজাত দ্রব্যের উৎপাদন। আবার উত্তর চীনের কাজাখদের ভেতর 22018A জিনের সংখ্যাধিক্য ও দক্ষিণের হানদের ভিতর কম পরিমাণ প্রমাণ করে এশিয়ায় এই জিনের উদ্ভব আগের মিউটেশন থেকে আলাদা হলেও এরা সিস্টার মিউটেশন।

এই মিউটেশনের ফলে শিশুকালের দুধ হজম হওয়ার শক্তি নষ্ট হবার পরে প্রাপ্তবয়স্ক মানবদেহে নতুনভাবে ল্যাকটেজ এনজাইম তৈরি হয় ও ক্ষুদ্রান্ত্রে গিয়ে দুধ হজম হয়।

বিড়াল তাহলে দুধ খায় কীভাবে?

milk_1759755a

বিড়ালের ক্ষেত্রে বিড়াল আমরা পোষা শুরু করেছি মিশরীয়দের সময় থেকে বা ৫ হাজার বছর আগে। মানুষের সাথে তাদেরও দুধ হজমের জন্য ল্যাকটেজ এনজাইম উৎপন্ন হতে পারে, নাও পারে। অর্থাৎ বিড়ালেরও ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স থাকতে পারে।  এজন্য ভেটেরানিয়ানরা  বড় বিড়ালকে দুধ দিতে মানা করেন। একই ঘটনা ঘটেছে এখানেও, আমরা বিড়ালকে দুধ খেতে দেখলেও তা শুধু আমাদের ভূখন্ডেই।

সূত্রঃ ১. http://www.anthrogenica.com/showthread.php?717-Lactase-Persistence-and-the-LCT-22018A-gene

২. http://www.cam.ac.uk/research/news/indians-and-europeans-share-a-milky-past

৩. http://phys.org/news/2014-01-central-europeans-digested-years.html

Comments

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া জানান

সবার আগে মন্তব্য করুন!

জানান আমাকে যখন আসবে -
avatar
wpDiscuz