ম্যাগনেটার – সবচে অবোধগম্য নিউট্রন তারার জন্মরহস্য

ম্যাগনেটার কি ? 
ম্যাগনেটার হল একধরণের নিউট্রন তারা যা
ক) নিউট্রন তারা থেকে কম বেগে ঘুরে ( ১ – ১০ সেকেন্ডে একবার)
খ) নিউট্রন তারা থেকে শক্তিশালী ম্যাগনেটিক ফিল্ড

১০^৮ – ১০^১০ টেসলার ম্যাগনেটিক ফিল্ড পৃথিবী বা পৃথিবীর শক্তিশালী ম্যাগনেট থেকে লক্ষ কোটি গুণ বেশি শক্তিশালী

 এই ম্যাগনেটিক ফিল্ড ১০০০ কি মি দূরেই ইলেকট্রন মেঘকে এতই বিকৃত করে দিবে, পদার্থের ভৌত অবস্থা তার চেনা রূপে থাকবে না। খুব কাছাকাছি এলে অরবিটালের আকৃতি হয়ে যাবে সিলিন্ডার, দৈর্ঘে ডি ব্রগলী ওয়েভলেংথ থেকেও ছোট! হাইড্রোজেন অণুকে সাইজ করে তার ব্যাসের ২০০ ভাগের এক ভাগ সমান ব্যাসের স্পিন্ডল হবে!

ম্যাগনেটিক ফিল্ড চাঁদের দূরত্বের অর্ধেকের ভিতরেই সকল ক্রেডিট কার্ডের তথ্য মুছে ফেলতে পারে!বয়স মাত্র ১০,০০০ বছর – এরপরেই নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। আমাদের ছায়াপথে এমন নিষ্ক্রিয় ৩ কোটি ম্যাগনেটার তারা আছে!


Artist’s impression of the magnetar in the star cluster Wester

 ম্যাগনেটারের জন্ম রহস্য উন্মোচন
Westerlund 1 স্টার ক্লাস্টারে আছে আমাদের ছায়াপথের জানাশোনা ম্যাগনেটারের একটি। এর সাইজ দেখে ধারণা, মূল তারার ভর ছিল সূর্যের ৩০-৪০ গুণ। এত ভর থাকলে Tolman-Oppenheimer-Volkoff সীমা  অনুযায়ী ব্লাকহোল হওয়ার কথা ছিল, নিউট্রন তারা হল কেন? এই ধাঁধা বিজ্ঞানীদের সমস্যায় ফেলেছিল ৩৫ বছর ধরে। এই ম্যাগনেটারের নাম  CXOU J164710.2-455216

Westerlund-1
দুটো বিশাল তারা যদি বাইনারী সিস্টেম গঠন করে থাকে তবে মৃত্যুর সময় তা ব্লাকহোল না হয়ে ম্যাগনেটার হতে পারে। এ সময় তারা সূর্য থেকে পৃথিবীর সমান দূরত্বে একে অন্যকে কেন্দ্র করে ঘুরতে ঘুরতে বাইনারী সিস্টেম গঠন করবে। কিন্তু ম্যাগনেটারের যে বাইনারী সঙ্গী থাকার কথা , তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। এই তারাকে খুঁজে পাওয়া যায় স্টার ক্লাস্টারের অন্য প্রান্তে, নাম Cl* Westerlund 1 W 5 – এটা ছিল একটা ছুটে যাওয়া তারা যার ভর অনেক কম, উচ্চমাত্রার উজ্জ্বলতা ও কার্বনের উপস্থিতি।

বর্তমানে বিজ্ঞানীরা পরো প্রসেস বুঝতে সক্ষম হয়েছেন। ম্যাগনেটার তৈরির প্রথম পর্যায়ে বড় তারাটি জ্বালানী শেষ হলে ছোট তারাকে তার নিজের খোলস থেকে কিছু পদার্থ / লেয়ার খসিয়ে ছোট তারাকে দিয়ে দেয়! এই ছোট তারাটিই হবে ম্যাগনেটার। ছোট তারাটি তখন প্রচণ্ড বেগে ঘুরতে শুরু করে যার ফলাফল হবে শক্তিশালী ম্যাগনেটিক ফিল্ড। এই ঘূর্ণনই ম্যাগনেটার হওয়ার মূল নিয়ামক।

ছোট তারাও দানশীল! প্রসেসের দ্বিতীয় ধাপে সে সাইজে এতই বড় হয়ে যায় যে, কিছুটা পদার্থ আগের বড় তারাকে দান করে। এতে আগের বড় তারাটা হয়ে যায় বেশ উজ্জ্বল। এইজন্যই Westerlund 1-5. সঙ্গী তারাটি উজ্জ্বল হয়েছে।

শেষে সুপারনোভা বিস্ফোরণে আগের বড় তারা ধাক্কা খেয়ে দূরে সরে যায় ও ছোট তারা ব্লাকহোল হবার বদলে ম্যাগনেটার হয়।

সূত্র Magnetar formation mystery solved?:http://phy.so/319266139 Via ESO

Comments

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া জানান

সবার আগে মন্তব্য করুন!

জানান আমাকে যখন আসবে -
avatar
wpDiscuz