বিজ্ঞান কল্পকাহিনী : কৌতূহল

মহাজাগতিক প্রাণীর খোঁজে আগেও অনেক অভিযান পরিচালিত হয়েছে । এদের উদ্দেশ্যে বার্তা‌ ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে মহাবিশ্বের নানা প্রান্তে, মানুষের পক্ষে যতদূর সম্ভব।
পৃথিবীর নানা প্রান্তের নানা ল্যাব থেকে এসব বার্তা ছড়িয়ে গেছে বহু আলোকবর্ষ দূরে ।
তেমনি এক ল্যাবে কাজ করে বিজ্ঞানী সাইফ ।
প্রতিবার বার্তা পাঠানোর আগে নিজেদের যথাসম্ভব ইনসুলেটেড করে নিতে হয় , এবং প্রতিরক্ষা আবরণী দিয়ে নিজেদের ভালভাবে ঢেকে নিতে হয় যাতে তথ্যের বিশুদ্ধতা রক্ষা পায় ।
আজ এমনি একটা মহাকাশযান পাঠানো হচ্ছে সাইফদের ল্যাব থেকে ।
সাইফ কি মনে করে সবার অলক্ষে নিজের একটি চুল ঢুকিয়ে দিল ডিস্কের সাথে ।

….গায়ে অসম্ভব ব্যথা নিয়ে সাইফ জেগে উঠে ঘুম থেকে, তার কেবল মনে হচ্ছে অনেক কাল ঘুমিয়ে ছিল । রুমের পরিবেশ পুরোপুরি অচেনা । এ কোথায় সে?
স্বপ্ন দেখছেনাতো ?
যে রুমে সে শুয়ে আছে সেখানের একটা বস্তুও তার চেনাজানা নয় । আর চারপাশে কেমন যেন একটা গা শিরশিরে একটা অনুভূতি । তার মনে হচ্ছে, সে ব্যাখ্যার বাইরে কিছু একটা অনুভব করতে পারছে ।
“আমি স্বপ্ন দেখছি”-নিজেকে প্রবোধ দিল সাইফ ।
”না তুমি স্বপ্ন দেখছো না ” কেউ যেন বলে উঠল তার পরিষ্কার মনে হল ।
চমকে উঠে চারপাশে তাকাল । কোথাও কেউ নেই ।
তাহলে কথা বলল কে ? বরং বলা চলে, সে কথা শুনল !
“আমরা তোমার প্রতিলিপি তৈরি করেছি তোমার চুল থেকে, তোমাদের পাঠানো বার্তায় একমাত্র জৈবিক বস্তু থেকে, তোমার ডিএনএ থেকে তোমার ব্যাপারে সব জেনে গেছি, তোমার ভেতর কিছু অদলবদল ঘটিয়েছি যাতে আমরা তোমার সাথে যোগাযোগ করতে পারি, যাতে তুমি এই পরিবেশে টিকে থাকতে পারো ! “

Comments

রবিউল হাসান

রবিউল হাসান

বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ দ্বিতীয় বিদ্যায়। বরং বিক্ষত হও প্রশ্নের পাথরে। বরং বুদ্ধির নখে শান দাও, প্রতিবাদ করো। অন্তত আর যাই করো, সমস্ত কথায় অনায়াসে সম্মতি দিও না। কেননা, সমস্ত কথা যারা অনায়াসে মেনে নেয়, তারা আর কিছুই করে না, তারা আত্মবিনাশের পথ পরিস্কার করে।” -নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
জানান আমাকে যখন আসবে -
guest
2 Comments
সবচেয়ে পুরাতন
সবচেয়ে নতুন সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত
Inline Feedbacks
View all comments
মো. হাসানুল হক বান্না
3 বছর পূর্বে

বিজ্ঞান কল্পকাহিনী লিখতে অংশ করে প্রকাশ করা যাবে?

2
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x