স্বচ্ছ মাথাওয়ালা প্রাণী

10294314_761186867260024_5066047820186207387_n

স্বচ্ছ মাথাওয়ালা মাছ !!

সাগরের অতল গহবরে আলো একেবারেই পৌঁছে না বলতে গেলে। তাই, ঐ এলাকার প্রাণীদের মধ্যে আমরা আলো নিয়ে অনেক ধরনের অভিযোজন দেখতে পাই, বর্ধিত সংবেদনশীলতা থেকে শুরু করে নিজে নিজে আলো জ্বালানো পর্যন্ত। সেগুলো যতই আশ্চর্য হোক না কেন, ব্যারেল-আই মাছ (Barreleye Fish) এদের চেয়ে এক কাঠি উঁচা – ব্যাটায় নিজের মাথার ভেতর থেকে সব দেখতে পারে।

ভেতরে যে সবুজ গোল্লা দুইটা দেখতেছেন, ওগুলাই তার চোখ। স্বচ্ছ কপালের ভেতর থেকেই ওগুলো দিয়ে সে তাকিয়ে থাকে ওপরে ভাসতে থাকা শিকারের দিকে। এই কপালখানা আসলে একটা বিশেষ তরলভর্তি বস্তার মত। মনপসন্দ শিকার পাইলে শরীর ঘুরিয়ে নেয় ওপরে, যেদিকে শিকার দেখেছে সে। ২০০৯ সাল পর্যন্ত মনে করা হতো যে এই চোখগুলো ওপরের দিকে ফিক্স করা। কিন্তু একটা জীবন্ত নমুনা পাওয়ার পরে বের হইলো আসল কাহিনী।

মুখের কাছাকাছি যে দুটো ছিদ্র দেখা যায়, ওগুলোকে বলে NARE. ব্যারেল-আই ওগুলো দিয়ে পানির মধ্যে রাসায়নিক পদার্থের খোঁজ করে। এই মাথাসংক্রান্ত অভিযোজন তো আছেই, চোখের হলুদ পিগমেন্টও দারুণ একটা কাজ করে। কোনো আলো দেখতে পেলে সেটা সূর্যের আলো নাকি আলোক-উৎপাদনকারী (bio-luminiscent) মাছের আলো, সেটা ঐ পিগমেন্ট দিয়ে বোঝা যায়। বিবর্তনের চমৎকার উদাহরণই বটে!

রেফারেন্সঃ
উইকিপিডিয়া
হাফিংটন পোস্ট

Comments

ফরহাদ হোসেন মাসুম

ফরহাদ হোসেন মাসুম

বিজ্ঞান একটা অন্বেষণ, সত্যের। বিজ্ঞান এক ধরনের চর্চা, সততার। বিজ্ঞান একটা শপথ, না জেনেই কিছু না বলার। সেই অন্বেষণ, চর্চা, আর শপথ মনে রাখতে চাই সবসময়।

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া জানান

সবার আগে মন্তব্য করুন!

জানান আমাকে যখন আসবে -
avatar
wpDiscuz