পানিতে দীর্ঘসময় হাত ভিজিয়ে রাখলে হাতের চামড়া কুঁচকে যায় কেন?

সং‌ক্ষিপ্ত উত্তরঃ পা‌নি‌তে দীর্ঘসময় থাক‌লে ত্ব‌কের (skin) ৩টি স্তরের (layer) ম‌ধ্যে মা‌ঝের dermis নামক স্তর‌টি আকা‌রে ছোট হ‌য়ে নি‌চে নে‌মে যায়। ফ‌লে উপ‌রের epidermis স্তর‌টি আর টান টান অবস্থায় থাক‌তে পা‌রে না বরং কুঁচকে যায়।

একটু বড় উত্তরঃ আমরা সবাই জা‌নি, পা‌নি নি‌য়ে দীর্ঘসময় নাড়াচাড়া কর‌লে হা‌তের চামড়া কুঁচকে যায়। শুধু হা‌তের চামড়াই নয়, খেয়াল কর‌লে দেখ‌বেন পা‌য়ের পাতার চামড়াও কুঁচকে যায়। কেমন জা‌নি বু‌ড়ো/বু‌ড়ি হ‌য়ে গে‌ছি ব‌লে ম‌নে হয়। কিন্তু কেন? শরী‌রে অন্যান্য জায়গার চামড়া তো এভা‌বে কুঁচকে যায় না! হুম, অ‌নে‌কের ম‌নেই হয়ত এমন চিন্তা ঘুরপাক খায়। ত‌বে কথা না বা‌ড়িয়ে চলুন জে‌নে নেই, দৈন‌ন্দিন জীব‌নে ঘটা হাজা‌রো ঘটনার ম‌ধ্যে এক‌টি ঘটনার বৈজ্ঞা‌নিক ব্যাখ্যা।

শুরু‌তেই আমা‌দের যেটা জান‌তে হ‌বে সেটা হল আমা‌দের ত্ব‌কের (skin) গঠন বিন্যাস। আমাদের ত্বক যা আমা‌দের পু‌রো শরীর‌কে ঘি‌রে রেখেছে তা ৩টি স্তর (layer) দ্বারা তৈরী। যথাঃ

  1. Epidermis,
  2. Dermis, ও
  3. Hypodermis (subcutaneous tissue)

Epidermis হ‌চ্ছে সব‌চে‌য়ে উপ‌রের স্তর । এই epipidermis স্তরটি আবার ৫টি উপস্তর (sublayer) দ্বারা তৈরী। যথাঃ

  1. Stratum corneum
  2. Stratum lucidum
  3. Stratum granulosum
  4. Stratum spinosum
  5. Stratum germinativum (stratum basale)

ছবিঃ Epidermis স্তরের বিভিন্ন উপস্তরসমূহ

এই ৫ টি sublayer র ম‌ধ্যে stratum corneum হ‌চ্ছে সব‌চে‌য়ে উপ‌রের sublayer। আর এই sublayer টিকেই মূলত আমরা খা‌লি চো‌খে দেখ‌তে পাই। মজার বিষয় হল, epidermis layer-এ কোন রক্তবা‌হিকা (blood vessel) নেই।

Epidermis-র নি‌চের layer টির নাম হল dermis। এই layer-এ নিউরন থাকে যা আমা‌দের কোনো কিছু উপলব্ধি (sense) কর‌তে সহায়তা ক‌রে। এছাড়াও এই layer এ আ‌রো র‌য়ে‌ছে –

  1. Hair follicles (এখান থেকে চুল বের হয়)
  2. Sweat gland (ঘামগ্রন্থি)
  3. Sebaceous (oil) gland (তেলগ্রন্থি)
  4. Lymphatic vessel (লসিকাবাহিকা)
  5. Blood vessel (রক্তবাহিকা)

Hypodermis layer‌ টি একেবারে নিচের দি‌কে থাকে। আপাতত এই layer টি সম্প‌র্কে না জানলেও চল‌বে।

এবার আসা যাক আমা‌দের আ‌লোচ্য বিষ‌য়ে। অর্থাৎ, পা‌নি‌তে দীর্ঘসময় হাত ভি‌জি‌য়ে রাখ‌লে হা‌তের চামড়া কেন কুঁচকে যায়।

  1. আমরা যখন দীর্ঘসময় পা‌নি‌তে থা‌কি তখন dermis layer এ থাকা neuron গু‌লো (যা autonomic nervous system-র একটি অংশ) স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঐ এলাকার blood vessel গু‌লো‌কে সংকু‌চিত ক‌রে ফে‌লে। ফ‌লে dermis layer টি আকা‌রে ছোট হয়ে নি‌চে নে‌মে যায়। (ছবি 01 ও 02 দেখুন)
  2. Dermis layer টি সংকু‌চিত হবার পূ‌র্বে epidermis layer টি‌কে টান টান ক‌রে রেখেছিল। কিন্তু dermis layer টি যে‌হেতু এখন সংকু‌চিত হ‌য়ে নি‌চে নে‌মে গে‌ছে তাই উপরে থাকা epidermis layer টি আর টান টান অবস্থায় থাক‌তে পা‌রে না বরং কুঁচকে যায়।(ছবি 01 ও 02 দেখুন)

ম‌নে হয়ত প্রশ্ন জাগ‌তে পারে, হাত ও পা‌য়ের তালুর চামড়াই ত‌বে কেন কুঁচকে যায়?

উত্তরঃ 2003 সা‌লে Muscle and Nerve magazine -এ “Water‐immersion wrinkling is due to vasoconstriction” না‌মে এক‌টি প্রবন্ধ (article) প্রকা‌শিত হয়। উক্ত প্রব‌ন্ধে Dr. Smith বলেন, হাত ও পা‌য়ের তালু‌র dermis layer-এ ঘামগ্র‌ন্থির (sweat gland) প‌রিমাণ অন্যান্য জায়গা থে‌কে অ‌নেক বে‌শি। পা‌নি‌তে দীর্ঘসময় থাক‌লে, পা‌নি ঘামগ্র‌ন্থির ক্ষুদ্রা‌তিক্ষুদ্র না‌লীর মাধ্য‌মে গ্র‌ন্থির ম‌ধ্যে প্র‌বেশ ক‌রে ফেলে। ফ‌লে গ্র‌ন্থির ম‌ধ্যে থাকা লব‌ণের ঘনমাত্রা ক‌মে যায়। লবণের ঘনমাত্রা কমার কার‌ণে চারপা‌শে থাকা নিউরনগু‌লো ঐ এলাকার রক্তবা‌হিকাগু‌লো‌কে সংকু‌চিত ক‌রে ফে‌লে। ফ‌লে ঐ এলাকা (dermis) আকা‌রে ছোট হ‌য়ে নি‌চে নে‌মে যায় এবং উপ‌রে থাকা epidermis layer টি কুঁচকে যায়।

ছবিঃ ঘামগ্রন্থি

Dr. Smith এর এই উত্তর টি‌কে ভুলক‌রে আবার অস‌মো‌সিস (osmosis) ভে‌বে বস‌বেন না।

জে‌নে রাখা ভালঃ ১৯৩০ সা‌লের আগে ম‌নে করা হতো যে, পা‌নি অস‌মো‌সিসের মাধ্যমে বা‌হির থে‌কে ত্বকের ভেত‌রে প্র‌বেশ ক‌রে ত্বক‌কে কুঁচকে ফে‌লে যা পরবর্তীতে ভুল প্রমা‌ণিত হয়।

আপ‌নি হয়তো জে‌নে খু‌শি হ‌বেন যে, কুঁচকে যাওয়া হাত ও পা‌য়ের ত্বক আমা‌দের কিছুটা সুবিধাও দি‌য়ে থা‌কে। যেমনঃ

  • পা‌নি‌তে আমা‌দের কর্মক্ষমতা বৃ‌দ্ধি। 2013 সালে বিখ্যাত nature ম্যাগাজিনে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে, কুঁচকে যাওয়া ত্বকের কোনো কিছু আঁক‌ড়ে ধরে রাখার ক্ষমতা (grip) অকু‌ঞ্চিত ত্বক থে‌কে ১২% বে‌শি। উক্ত গ‌বেষণায় দেখা যায়, কুঞ্চিত হাতযুক্ত ব্য‌ক্তিরা পা‌নিতে রাখা মার‌বেল‌কে অকু‌ঞ্চিত হাতযুক্ত ব্য‌ক্তি‌দের থে‌কে দ্রুত স‌রিয়ে ফেল‌তে পা‌রে।
  • ‌অন্য‌দি‌কে পা‌য়ের পাতার চামড়া কুঁচকে যাওয়ার সু‌বিধা হল, ভেজা রাস্তার উপর দি‌য়ে যেন আমরা সহ‌জেই খা‌লি পা‌য়ে হে‌ঁটে যে‌তে পা‌রি, যেন পিছ‌লে প‌ড়ে না যাই ।

আবার হয়ত প্রশ্ন জাগ‌তে পা‌রে, হাত ও পা‌য়ের তালুর চামড়া ত‌বে সর্বদা কুঁচকে থাকে না কেন?

এর কারণ হলো, এ‌তে ত্ব‌কের সংবেদনশীলতা (কোনো কিছু বোধ বা উপল‌ব্ধি করার ক্ষমতা) ক‌মে যায়। তাই কেবল প্র‌য়োজ‌নের সময়ই (মানে পানির মধ্যে) হাত ও পা‌য়ের তালুর চামড়া কুঁচকে যায়।


তথ্যসূত্র (Reference):

  1. https://www.youtube.com/watch?v=kqhoLNUTS8I
  2. https://www.youtube.com/watch?v=Aa1FRQ2o-wI
  3. https://www.youtube.com/watch?v=NBRV9QgObr8
  4. https://www.youtube.com/watch?v=uWjlRlpHlbA
  5. https://www.scientificamerican.com/article/why-do-our-fingers-and-toes-wrinkle-during-a-bath/

Comments

আপনার আরো পছন্দ হতে পারে...

মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া জানান

সবার আগে মন্তব্য করুন!

জানান আমাকে যখন আসবে -
avatar
wpDiscuz